কেন্দ্রের বঞ্চনা, আজও সীমান্তে বন্ধ ভারত-বাংলাদেশ ট্রেন

Must read

সংবাদদাতা, মালদহ: বহাল রয়েছে পরিকাঠামো, কিন্তু উদাসীন কেন্দ্রীয় সরকার। স্বাধীনতার ৭৫ বছর পরেও ভারতের শেষ সীমান্ত স্টেশন হবিবপুর ব্লকের সিঙ্গাবাদ দিয়ে আজও চালু হয়নি ভারত-বাংলাদেশ ট্রেন চলাচল। এর জন্য রেল দফতরের উদাসীনতাকেই দুষছেন মালদহের মানুষ।

আরও পড়ুন : মুখ্যমন্ত্রীর লোকপ্রসার প্রকল্পে নবজন্ম লোকশিল্পের

এক সময় এই রুটে দিনরাত হর্ন বাজিয়ে ছুটত ট্রেন। ব্রিটিশ আমলের সেই দৃশ্য ভারত স্বাধীন হওয়ার পরেও দেখা গিয়েছে বলে দাবি এলাকার প্রবীণ মানুষের। আচমকা ট্রেন পরিষেবা বন্ধ হয়ে যায় ৫০ বছর আগে। সমস্যায় পড়েন সাধারণ মানুষ। বাংলাদেশে যাওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক রেল পরিষেবা চালুর দাবি এখানকার মানুষের বহু বছরের। সিঙ্গাবাদ রেল স্টেশন থেকে ওপার বাংলার দূরত্ব খুব বেশি নয়। এখন এই রেলপথে মালবাহী ট্রেন বাংলাদেশ যাতায়াত করে। মানুষের দাবি, প্যাসেঞ্জার ট্রেন চালানোরও ব্যবস্থা করুক রেল।

আরও পড়ুন :প্র্যাকটিশনার নার্স, এক বৈপ্লবিক সিদ্ধান্ত

তাহলে জেলার বাসিন্দারা বৈধ পাসপোর্ট বা ভিসার মাধ্যমে ও দেশে সহজেই যাতায়াতের সুযোগ পাবেন। কিন্ত এ বিষয়ে বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকার উদাসীন। বহুবার দাবি জানিয়েও কাজ না হওয়ায় হতাশ মালদহের বাসিন্দারা। তাঁদের কথায়,কেন্দ্রীয় রেল মন্ত্রকের উচিত বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা। আন্তর্জাতিক রুট হলে মালদহের ভোল একেবারেই পাল্টে যাবে। প্রভূত কর্মসংস্থান হবে, অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হবে জেলা। বাংলাদেশ যেতে কোনও ভোগান্তি হবে না। কিন্তু এ নিয়ে উত্তর মালদহের বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু একেবারেই নীরব বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। প্যাসেঞ্জার ট্রেন চালুর দাবিকে সব রাজনৈতিক দলই সমর্থন করেছে।

Latest article